গত কয়েকদিন ধরে শোবিজের বাতাসে ভেসে বেড়াচ্ছিলো টিভি অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব ও নাজিয়া হাসান অদিতির বিচ্ছেদের গুঞ্জন। তবে সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে রবিবার (১৭ মে) সন্ধ্যায় বিচ্ছেদের খবরটি নিশ্চিত করেন অপূর্বর স্ত্রী অদিতি।

এর মধ্য দিয়ে দীর্ঘ ৯ বছরের দাম্পত্য জীবনের ইতি টানলেন অপূর্ব-অদিতি। নানা কারণে বনাবনি না হওয়ায় বিচ্ছেদের পথে হাটতে হয়েছে তাদের। এছাড়াও সংসার জীবনে আয়াশা নামের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে এই দম্পতির।

বিচ্ছেদের খবর প্রকাশ্যে আসলে তৎক্ষণাৎ কোনো মন্তব্য করতে দেখা যায়নি অপূর্বকে। তবে সেদিন দিবাগত রাতে অভিনেতা নিজের ফেসবুকে একটি পোস্ট শেয়ার করেছেন। যেখানে তিনি লিখেছে, ভরাক্রান্ত হৃদয়ে জানাচ্ছি নাজিয়া হাসানের সঙ্গে আমার ৯ বছরের জীবনের নতুন মোড় এসেছে। যা আমাকে দিশেহারা করে দিয়েছে। যদিও এমনটা আমি চাইনি। তবুও জীবন আজ আমাদের এখানে নিয়ে এসেছে।।

দাম্পত্য জীবনের সুন্দর মুহূর্তের কথা উল্লেখ করে তিনি লেখেন, এতগুলো বছর আমরা এক সঙ্গে ছিলাম। সে দারুণ একজন সহযাত্রী এ সত্যিকারের শুভাকাঙ্ক্ষী। আমার অনেক সাফল্যের মূলে তার অব্দান রয়েছে। চমৎকার, আত্মবিশ্বাসী উদ্যোক্তা এবং দয়ালু মানুষ ছিলেন অদিতি।

আমার ক্যারিয়ারের অনেক অর্জন থাকলেও আমার জীবনের সেরা অর্জন আমাদের ছেলে আয়াশ। পিতৃত্বের অসাধারণ অনুভূতি উপহার দেওয়ার জন্য নাজিয়াকে ধন্যবাদ দেওয়া অসম্ভব। সে মা হিসেবে অনন্য। যোগ করে বলেন অপূর্ব।

ওই পোস্টে তিনি আরও বলেন, বিয়ের মতো সম্পর্ক ইতি টানলে অনেক প্রশ্ন উঠে। কিন্তু আমি আমার বন্ধু, সহকর্মী ও ভক্তদের উদ্দেশ্য বলতে চাই, আমাদের ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। এই পর্যায়ে আসার জন্য কিছু কারণ ছিলো। আমাদের পরিবার সহযোগিতাপূর্ণ মনোভাব দেখিয়েছেন। আশা করি, আপনারাও বিষয়টি ইতিবাচক ভাবেই নিবেন।

সবশেষে সকলের কাছে দোয়া চেয়ে অপূর্ব বলেন, আমাদের তিন জনের জন্য দোয়া করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *